প্রতিটা দিন

– হ্যালো..(ঘুম মাখা কন্ঠে)
-কিরে নীল তুই এখোনো ঘুমাছ?
-কেনো? কয়টা বাজে?
-কয়টা বাজে মানে!! দুপুর ১ টা বাজে।
-মাত্র…
-অই বেটা মাত্র মানে? আর কালকে ফোন দিছি ফোন ধরছ নাই কে?
-ঘুমাইতাছিলাম। খেয়াল করি নাই।
-ভাই তুই উঠবি? ওঠ। এখনি ওঠ।
-এখন উইঠা কি করুম!
-আমার বাসায় আসবি। ১০ মিনিট এ।
-আচ্ছা আইতাছি।

প্রতিদিনের মতো কাল রাতেও ঘুমাতে ঘুমাতে ভোর ৫ টা বাজে। আর তাই ঘুম থেকে উঠতেও দেরি হয়। আমার জন্য অবশ্য দেরি না। ঠিকি আছে। কারণ কোনো কাজতো আমার নাই। উঠলেই কি আর না উঠলেই কি! ছোট বেলার সেই “Early to bed early to rise, makes a man healthy wealthy and wise” আমার কোনো উপকারেই আসলো না। কিন্তু এটা সত্য যে সকালে ঘুম থেকে উঠা শরীর এর জন্য খুবি উপকারী। এর ফলে শরীরের সকল ক্লান্তি এবং অবসাদ দূর হয়। সকালের আবহাওয়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আরো অনেক উপকার আছে। কিন্তু আমি উপকার জেনেও মানিনা। নিজেকে ভাল না বাসলে যা হয় আর কি।

আবার কে ফোন দিলো। ও আবারো আলভি ফোন দিয়েছে।
-হ্যা বল।
-আর ২ মিনিট আছে। আপনি কোথায় স্যার?
-আ এইতো বাসায়। বের হব এখনি?
-ও তাইলে আপনার আর কতখন লাগবে?
-এই ৫ মিনিট
-ওকে। ৫ মিনিট না আমি ৭ মিনিট দিলাম। ৭ মিনিট এর মধ্যে আবি।
-হুম। (ফোনটা কেটে দিলাম।)

৭ মিনিট তো দিলো। কিন্তু আমারতো ১০ মিনিট এও হবে না। নাহ হওয়াইতেই হবে। ও কালকেও ফোন দিছিলো। কিন্তু ঘুমের কারণে ধরতে পারিনি। আজকে না গেলে বা দেরি করলে রাগ করবে। যাই ফ্রেশ হই।

(আলভিকে ফোন দিচ্ছি)
-হ্যালো কে?
-দোস্ত রাগ করিছ না। আমি বাসার নিচে।
-রাগ করুম না মানে? তুই ৫ মিনিট চায়া নিলি। আমি আরো ২ মিনিট বাড়ায়া ৭ মিনিট দিলাম। তুই এখন ১৫ মিনিট পরে কইতাছোছ যে আমি বাসার নিচে।
-Sorry দোস্ত রাগ করিছ না।
-কই তুই?
-আমি নিচে।
-তুই সেই প্রথমেই কইলি তুই নিচে। এখনো তুই নিচে? আর কই তুই নিচে আমি তো দেখি না তোরে!
-এই যে, তুই কই?
-আমি ছাদে। কিন্তু তোরে কোথাও দেখিনা। মজা লছ তুই আমার লগে?
-দোস্ত এই যে আমি আয়া পরছি। নিচেই।
-ধুর বেটা তুই ফোন রাখ।
(আলভি ফোন কেটে দিলো)
খাইছে। বন্ধু আমার রাগ করছে। দৌড় দিতে হবে।

-দোস্ত Sorry দোস্ত। রাস্তায় মারা মারি লাগছিলো। পুরা রাস্তা বন্ধ ছিল তাই দেরি হয়া গেছে।
-এক ডায়লগ দিয়া আর কতদিন চলবি? অভ্যাস পাল্টাবি না জানি। কিন্তু ডায়লগ টা তো পাল্টাইতে পারছ! ১ টায় তোরে ফোন দিছি ১০ মিনিট এ আসার কথা ৪৪ মিনিট হয়া গেছে। খাইতে বইছিলি যে টাইম লাগছে?
-ভাল কথা কইছোছ। কিচ্ছু খাই নাই খুদা লাগছে।
-আমিতো জানি। তুই আইসা এই কথাটাই কবি। আমি তো তরে চিনি। তার জন্য সিংগাড়া আইনা রাখছি।
-কই বন্ধু। দে আগে খায়া লই।
-খা তোর জন্য আরেকটা জিনিস রাখছি।
-কি জিনিস?
-এমন এক জিনিস যা খাইলে মাথা থান্ডা থাকে, কোনো চিন্তা থাকে না। নিজেকে অন্য দুনিয়ার মনে হয়। মনে হয় যেন মাটিতে পা নেই।
-হইছে থাক আর বুঝাইতে হবে না। বুঝছি।
-হ এইবার খায়া নে। এই নে কোক ও আছে।

(অসমাপ্ত)

Sarwar

I'm student.

Leave a Reply