ফারিয়া মুরগীর বাচ্চা গলা টিপে টিপে মারে- মেহেদী উল্লাহ

download.jpg

“ফারিয়া মুরগীর বাচ্চা গলা টিপে টিপে মারে”- এরকম উদ্ভট নামের কারণেই হয়ত এই বইটি নিয়ে প্রচুর আলোচনা হচ্ছে। এই বইটি নিয়ে জানার জন্য আমি গুগোলের শরণাপন্ন হয়েছিলাম। গুগোল আমাকে Goodreads, মানবকন্ঠ, যুগান্তর এবং রকমারি থেকে কিছু লেখা দেখালো। দেখে যারপরনাই আনন্দিত হলাম।

ফারিয়া কিভাবে মুরগীর বাচ্চা গলা টিপে টিপে মারে?

এই প্রশ্নের উত্তর জানতে হলে আপনাকে বইটি কিনতে হবে। আমি বইটি পড়ি নাই, কেনার টাকা নেই বলে। প্রথমেই Goodreads এ ঢুকলাম, সেখানে দেখি- মেহেদী উল্লাহ নামে একজন ব্যক্তি বইটির লেখক এবং এটি ৩ তারকা খচিত। একজন রেটিং দিয়েছে ৪ স্টার, আরেকজন দিয়েছেন ২ স্টার- সব মিলিয়ে এই দুইটাই রেটিং। এটা থেকে ধারণা পাওয়া সম্ভব না। এরপর মানবকন্ঠে একজন পাঠক তার পাঠ প্রতিক্রিয়া দিয়েছে দেখলাম। না, আমার পক্ষে এই প্রতিক্রিয়া পড়ে কিছু বোঝা সম্ভব হল না। একটা লাইন Quote করি- “পাঠক ভাবতেই, একটু অবাক হবে যে, তারা কিছুক্ষণ রাজনৈতিক বিষয়ে পড়লেন ; তবু কোথায় যেন একটা প্রেম প্রেম ভাব ছিলো’—“অথচ খুব জরুরি প্রশ্নটার আকাল চলছে দেশে””। যুগান্তরে পুরো গল্পটাই সংক্ষেপে পাবেন রিভিউ এর নামে। আমার ধারণা এটা মেহেদী উল্লাহ নিজেই লিখেছেন। হ্যাঁ- লেখক হিসেবে তো তার নামই লেখা।

আরো একটু মজা পেলাম

ভাবলাম বইটা কেনা যেতে পারে। রকমারিতে ঢুকে দেখি এই বইটার কাস্টমার রিভিউ ৫ স্টার। আহা কি আনন্দ- কত ভালো মাণের হলে ৫ স্টার একটা বই পেতে পারে ভাবুন। এরপর “নির্ঝরের স্বপ্নভঙ্গ” হলো। লেখক নিজেই রিভিউ দিয়েছেন এবং খুব সুন্দর করে, বড় করে কাস্টমার রিভিউ লিখেছেন।

নূরানী জান্নাত নামের একজন পাঠক লেখকের ঐ রিভিউ এর নিচে যেটা লিখেছেন, সেটাতে আমি সত্যিই কষ্ট পেয়েছি। উনি লিখেছেন- “বইটা পড়ে মনে হচ্ছে সত্যিই লেখকের বাচ্চাকে গলা টিপে মারি”। কষ্টটা এই কারণে লাগলো যে- উনি লেখককে মারতে না চেয়ে লেখকের বাচ্চাকে কেন মারতে চাইছেন। এটা অন্যায়, ঘোর অন্যায়।

nameless

আমি এই পৃথিবীর কেউ না। আমি শূন্যের জগত থেকে এসেছি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *